পাবনায় একই পরিবারের ১৪ জনসহ ৬৮ জন কোয়ারেন্টাইনে, একজনকে জরিমানা


পাবনায় বৃহস্পতিবার পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত কোন রোগী সনাক্ত হয়নি। তবে বিদেশ ফেরত ৬৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

পাবনার সিভির সার্জন ডাঃ মেহেদী ইকবাল এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বিদেশ ফেরত ৬৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এদের মধ্যে সুজানগর উপজেলায় একই পরিবারের ১৪ রয়েছে। পাবনা জেনারেল হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগীর জন্য আইসোলেশন ওয়ার্ড খোলা হয়েছে। পাশাপাশি শহরের আরিফপুরে আমেনা মনসুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবনির্মিত চারতলা ভবনকে আইসোলেশন কেন্দ্র ঘোষণা করা হয়েছে। যেখানে এক সঙ্গে ২‘শ মানুষকে পৃথক ভাবে রেখে চিকিৎসা দেয়া যাবে।

হোম কোয়ারেন্টাইনের শর্ত মেনে টানা ১৪ দিন নিজ বাড়িতে ঘরের বাইরে না যেতে তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এসব শর্ত মানতে তাদের বাধ্য করতে বুধবার থেকে কঠোর নজরদারি শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। শর্ত ভঙ্গ করে বাইরে ঘোরাঘুরি করায় বুধবার সদর উপজেলার দাপুনিয়া ইউনিয়নে মালয়েশিয়া ফেরত এক প্রবাসী যুবককে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

পাবনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন জানান, হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশনার বিষয়টি কঠোর ভাবে তদারকি করতে বুধবার বিকেলে উপজেলা প্রশাসনের দুটি পৃথক দল কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ নেয়। এ সময় দাপুনিয়া ইউনিয়নে বাঙগাড়ি গ্রামে ফিরোজ আহমেদ নামের মালয়েশিয়া ফেরত এক যুবক শর্ত ভঙ্গ করে বাজারে ঘোরাঘুরি করতে দেখায় ভ্রাম্যমান আদালতে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

জয়নাল আবেদীন আরো জানান, করোনা ঝুঁকি মোকাবেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনের শর্ত মানতে বাধ্য করতে জেলা প্রশাসন কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এ ব্যপারে স্থানীয় জনসাধারণের সহযোগীতাও চেয়েছেন তিনি।