পাবনার সকল মার্কেট, শপিংমল, দোকানপাট বন্ধ ঘোষণা


পাবনা শহরসহ উপজেলার সকল মার্কেট, শপিংমল, দোকানপাট পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

সোমবার (১৮ মে) বিকাল ৪টা থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সোমবার ১৮ মে থেকে পাবনার সকল মার্কেট দোকানপাট শপিংমল বন্ধ রাখার নির্দেশনা জারি করে জেলা প্রাশসন বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে।

সোমবার দুপুরে পাবনা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ এর বিস্তার রোধে ১৮ মে থেকে পরর্বতী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত পাবনার জেলা উপজেলা পর্যায়ের সকল মার্কেট, দোকান পাট, শপিংমল বন্ধ থাকবে। কেউ এ আদেশ না মানলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। শুধু মাত্র ঔষধ সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দোকান খোলা থাকবে এবং কৃষিপণ্য সরবরাহকৃত যানবাহন খোলা থাকবে।
 
এ ব্যাপারে পাবনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শাহেদ পারভেজ বলেন, মানুষে কেনাকাটা সীমিত ভাবে হচ্ছে না। তারা স্বাস্থ্যবিধিও মানছে না, সামাজিক দুরত্ব বিবেচনা করছে না। প্রথমত আমরা কিছু বিষয় বিবেচনা করে মার্কেট খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেই কিন্তু মানুষের এত ভীর, মানুষ কোন ভাবেই সচেতন নয়। তাই আমাদের জরুরী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
 
উল্লেখ্য, নভেল করোনা ভাইরাস বিস্তার ঠেকাতে এবার ঈদে মার্কেটে কেনাকাটার বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। কিন্তু ১০ মে ব্যবসায়ীদের চাপে মার্কেট সীমিত ভাবে খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। প্রতিদিন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সকাল ১০ টা থেকে বেলা ৪ টা পর্যন্ত মার্কেটে কেনাকাটার নির্দেশনা দেয়া হলেও পাবনায় তেমন কেউ মানেনি সামাজিক দূরত্ব। জটলা হয়ে কেনাকাটায় ব্যস্ত থাকতে দেখা গেছে। এবং ভীরও বাড়ছে। বর্তমানে নভেল করোনা ভাইরাসে যখন দেশে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২৩ হাজার ছাড়িয়েছে এবং পাবনায় ১৮ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এমতাবস্থায় সামাজিক দূরত্ব না মেনে ভীর গেদারিং এ ঈদের কেনাকাটা শুধু ঝুঁকিপূর্ণই নয় মহাবিপদ জনক। এ অবস্থায় পাবনা জেলা প্রশাসনের এমন সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সচেতন সমাজ।