পাবনায় প্রবাসীর স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের একাধিক ভিডিও ফাঁস, স্কুলশিক্ষক জেলে


পাবনার চাটমোহরে প্রবাসীর স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে মিলিত হয়ে ভিডিও ধারণ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সেই ভিডিও ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে টাকা দাবির অভিযোগে তিন যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার সকালে উপজেলার বিলচলন ইউনিয়নের বোঁথর এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এরআগে শুক্রবার দিবাগত রাতে ওই নারী বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন।

আটককৃতরা হলেন- বোঁথর গ্রামের আবদুল জলিলের ছেলে মামুন হোসেন (২৬), আবদুল কুদ্দুসের ছেলে আলমগীর হোসেন (২৩) ও মৃত মকবুল হোসেনের ছেলে জগলুল হোসেন।

মামলা ও এলাকাবাসীর তথ্যে জানা গেছে, বোঁথর গ্রামের জনৈক এক প্রবাসী বছর খানেক আগে সৌদি আরব পাড়ি জমান। ওই প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে ছেলের স্কুলশিক্ষক মামুন হোসেনের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এই সম্পর্কের রেশ ধরে তারা উভয়েই বিভিন্ন জায়গায় একাধিকবার শারীরিক সম্পর্কে মিলিত হন। এ সময় তার মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করেন মামুন। পরে ওই ভিডিও দেখিয়ে আবারও শারীরিক সম্পর্কে মিলিত হওয়ার চেষ্টা করলে ওই নারী বিয়ের জন্য মামুনকে চাপ দেন। কিন্তু সে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায়।

এরপর মামুন তার এলাকার আলমগীর ও জগলুল নামের দুই যুবককে সেই ভিডিও মোবাইলের মাধ্যমে হস্তান্তর করে। পরে তারা তিনজন মিলে সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে প্রবাসীর স্ত্রীর কাছে টাকা দাবি করেন। এ ঘটনার পর শুক্রবার রাতে ওই প্রবাসীর স্ত্রী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এবং পর্ণোগ্রাফি আইনে মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, ভুক্তভোগী ওই নারী থানায় মামলা করেছেন। শনিবার অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত তিনজনকেই আটক করা হয়েছে। এ সময় তাদের কাছ থেকে মেমোরি কার্ড উদ্ধার করা হয়। পরে তাদের গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানান ওসি।